সিআইডি’র স্ত্রী মাংস তুলেনিল গৃহকর্মীর /আটকের পর:আহারে ক্যান নাটোরে আইলাম

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ১০:০০ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২১

নিউজ ডেস্ক: সিআইডি’র স্ত্রী মাংস তুলেনিল গৃহকর্মীর । নাটোরে ১৩ বছর বয়সী গৃহকর্মীকে অমানসিক নির্যাতনের অভিযোগে সিআইডি কর্মকর্তা আতিকুর রহমানের স্ত্রী সুমি বেগমকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে পুলিশ। আর এ ঘটনায় নির্যাতিত গৃহকর্মীর মা বাদি হয়ে নাটোর সদর থানায় একটি মামলা করেছেন। আর ওই গৃহকর্মীকে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে।

নির্যাতিত গৃহকর্মীর মা নার্গিস খাতুন জানান, ঢাকায় কর্মরত সিআইডি’র উপ-পরিদর্শক খন্দকার আতিকুর রহমানের মীরপুরের বাসায় ৩ বছর আগে নাটোর সদর উপজেলার পাইকেরদোল এলকার ওই গৃহকর্মীকে কাজের জন্য রাখা হয়। এর পর থেকে সিআইডির কর্মকর্তার স্ত্রী সুমি বেগম ওই গৃহকর্মীকে ৩ বছর ধরে তার পরিবারের সাথে যোগাযোগ করতে দেযননি।

এ সময়ের মধ্যে ২ বছর ৫ মাস ঢাকার বাড়িতে আর গত ৭ মাস ধরে নাটোর সদর উপজেলার ভাবনীর গ্রামের বাড়িতে গৃহকর্মীর শরীরে গরম আয়রনের ছ্যাঁকাসহ নানানভাবে নির্যাতন করেন সুমি বেগম।

নাটোর সদর উপজেলার বড়হরিশপুর ইউপি  মেম্বার ফিরোজা বেগম জানান,  ওই গৃহকর্মীর দাদার মৃত্যুর পর তাকে নিয়ে বুধবার বিকেলে পাইকেরদোল এলাকায় আসেন সুমি বেগম।

এ সময় গৃহকর্মী তার নির্যাতনের চিহ্ন তার মা ও পরিবারের লোকদের দেখায়। শিশুটির শরীরে গরম আয়রনের ছ্যাঁকাসহ প্লাস দিয়ে শরীরের বিভিন্ন অংশের মাংস তুলে নেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী সুমি বেগমকে পুলিশে সোপর্দ করে।  এই ঘটনার দ্রুত দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন।

নাটোর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার -অপরাধ ও প্রশাসন- তারেক জুবায়ের জানান, নির্যাতিত গৃহকর্মীর মা নার্গিস খাতুন বাদি হয়ে রাত-১২ টায় সুমি বেগমকে অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে নাটোর সদর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

এবং নির্যাতিত শিশুটি পুলিশে হেফাজতে আছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হবে।

এলাকাবাসী আরও জানান,স্বামী সিআইডি কর্মকর্তা আর এই বেডি লাগে যেন একজন কশায়। তাকে মানুষ হিসেবে মনেই হয়না। আমরা এর এমন শাস্তি চাই যা দেখে আর কেউ এই অমানসিক নির্যাতন করার সাজস পাবেনা।