জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্র নিন্দা জানিয়েছেন মুহিবুল্লাহকে হত্যার ঘটনায়

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৩:৪০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০২১

 

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জাতিসংঘ ও যুক্তরাষ্ট্র নিন্দা জানিয়েছেন মুহিবুল্লাহকে হত্যার ঘটনায়। রোহিঙ্গা শরণার্থী নেতা মুহিবুল্লাহকে হত্যার ঘটনার  প্রতিবাদ জানিয়ে এই ঘটনার তদন্ত করতে বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন জাতিসংঘ। ২৯ সেপ্টেম্বর বুধবার রাতে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গুলি করে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

২০১৭ সালে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর গণহত্যা-ধর্ষণ  এবং  অগ্নিকাণ্ড থেকে বাঁচতে ৭ লক্ষ- ৩০ হাজার রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। তাদের বড় একটি গোষ্ঠীর নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন এই মুহিবুল্লাহ।-খবর রয়টার্সের

৩০ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার নিউিইয়র্কে এক সংবাদ সম্মেলনে জাতিসংঘের মুখপাত্র স্টেফানি ট্রেম্বলে জানান, এই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করে দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায়  আনতে বাংলাদেশের কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

এদিকে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্থনি ব্লিংকিন জানান, মুহিবুল্লাহকে হত্যার ঘটনায় দুঃখভারাক্রান্ত এবং তিনি বিভ্রান্তি বোধ করছেন। বিশ্বব্যাপী রোহিঙ্গা মুসলমানদের অধিকার আদায়ে তাকে সাহসী এবং তুখোড় সমর্থক হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন মুহিবুল্লাহকে।

অন্যদিকে রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় অবশেষে মামলা রুজু হয়েছে। ১ অক্টোবর শুক্রবার সকালে এ বিষয়টি নিশ্চিত করে উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি )আহমেদ মঞ্জুর মোরশেদ। জানান, মুহিবুল্লাহ হত্যার ঘটনায় তার ভাই মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা-২০-২৫ জনকে আসামি করে বৃহস্পতিবার রাতে মামলা দায়ের করেছন।

অপরদিকে রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর বুধবার রাতেই শরণার্থী শিবিরের মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছে এপিবিএনসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। যেখানে মুহিবুল্লাহ খুন হন, সেই লম্বাশিয়াসহ আশ-পাশের রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। শুক্রবারও সকাল থেকে লম্বাশিয়া ক্যাম্পের বিভিন্ন স্টেশনের দোকানপাট বন্ধ আছে।

কক্সবাজার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম জানান, বর্তমানে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। ক্যাম্পে যে কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে লম্বাশিয়াসহ আশ-পাশের রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে এপিবিএন পাশা-পাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য নিয়োজিত আছেন।

খুনের বিষয়ে  জানতে চাইলে তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সন্ত্রাসীদের গুলিতেই মুহিবুল্লাহ খুন হয়েছে, এটা নিশ্চিত। তবে কেন খুন করল, কারা করল। তা এখনও নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

একই বিষয়ে পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সংশ্লিষ্টরা খোঁজখবর নিচ্ছেন। ঘটনায় জড়িতদের শনাক্ত করে গ্রেপ্তারের অভিযানও অব্যাহত রেখেছেন বলে জানান তিনি।

গুলি করে মুহিবুল্লাহকে হত্যার ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে দ্রুত তদন্ত করে দোষীদের বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা (ইউএনএইচসিআর)। আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠনগুলোও খুনিদের বিচারের আওতায় আনার জোড়দাবি জানিয়েছেন।