“মানবতার সেবায় এগিয়ে আসাটাই জীবনের স্বার্থকতা”–কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৯:২৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৮, ২০২১

আল-মামুন,খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি:: ভারত প্রত্যাগত শরণার্থী বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা এমপি বলেছেন, আমরা একে অপরের পরিপুরক। মানবতার সেবায় এগিয়ে আসতে পারাটাই জীবনের স্বার্থকতা উল্লেখ করে প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পার্বত্য চট্টগ্রামসহ গুইমারায় প্রতিষ্ঠিত গুইমারা সরকারি কলেজ সরকারি করণসহ নিজ অবস্থান থেকে কাজে সাবেক রিজিয়ন কমান্ডার তোফায়েল আহম্মদের প্রসংশা করেন।

বৃহস্পতিবার গুইমারা সরকারি কলেজের মাঠে গুইমারা রিজিয়ন ও বিদ্যানন্দন ফাউন্ডেশন  এর পক্ষ থেকে বিনামূল্য চিকিৎসা, শীতবস্ত্র বিতরণ ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় এমপির বক্তব্যের শেষ মূহুতের্ব “মানুষ মানষের জন্যে,জীবন জীবনের জন্যে,একটা সহানুভুতি কি মানুষ পেতে পারে” গেয়ে বক্তব্যের ইতি টানেন।

অনুষ্ঠানে গুইমারা রিজিয়নের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আ স ম রিদওয়ানুর রহমান বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রতিটি ক্ষেত্রে সেবার মান বৃদ্ধিসহ অসহায় মানুষের সেবায় কাজ করে যাচ্ছে। এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে জানিয়ে তিনি শান্তি-শৃঙ্খলা-নিরাপত্তা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অটুট রাখতে বদ্ধ পরিকর বলে মন্তব্য করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি বাসন্তী চাকমা, বিজিবি’র সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল মো: আবদুল মালেক,খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু,বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন এর পরিচালক মো: জামাল উদ্দিন অংশ নেন।

এছাড়াও খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদ সদস্য মেমং মারমা,মাঈন উদ্দিন,হিরণ জয় ত্রিপুরা,রামগড় উপজেলা চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদীপ ত্রিপুরা,গুইমারা উপজেলা চেয়ারম্যান উশ্যেপ্রু মারমা,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ঝর্ণা ত্রিপুরাসহ জনপ্রতিনিধিসহ প্রশাসনিক নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন পর্যায়ে নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

পাহাড়ে স্থিতিশীলতা ও শান্তি বজায় রেখে পাহাড়ের মানুষের পাশে থেকে কাজ করার পাশাপাশি ২৪ পদাতিক ডিভিশনের গুইমারা রিজিয়নের জনকল্যাণমূলক কর্মসূচীর ধারাবাহিকতায় ‘গুইমারা রিজিয়ন ও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন’ যৌথ সহযোগিতায় ৫ উপজেলার ৫’শতাধিক পরিবারের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ,বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ৬০ জন মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে বৃত্তি প্রদান করা হয়।