অসুস্থরা কলিংবেল চাপলেই হাজির কর্মকর্তা: সাতক্ষীরা পাসপোর্ট অফিসে সততার দোকান

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ১১:৩৮ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৫, ২০২১

মীর মোস্তফা আলী,সাতক্ষীরা : একজন সরকারী কর্মকর্তার সদিচ্ছা ও আন্তরিকতায় সাতক্ষীরা আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিসের সুনাম এখন ছড়িয়ে পড়েছে চারিদিকে। কোন রকম হয়রানি ছাড়া কাজ করে নিতে পেরে সেবা নিতে আসা মানুষ দারুন খুশি। অফিসের মধ্যেই দোকান। প্রয়োজনীয় জিনিসটি নিয়ে নির্ধারিত স্থানে পণ্যের মূল্য রাখছেন ক্রেতারা, শিখছেন সততা। বিক্রেতা ছাড়াই চলছে সাতক্ষীরা পাসপোর্ট অফিসে “আত্মপ্রেরণা’র দোকানটি।

অসুস্থ, প্রতিবন্ধী, বৃদ্ধ যাদের দ্বিতীয় তলায় অফিসের কর্মকর্তার কাছে যাওয়ার প্রয়োজন, কিন্তু যেতে পারছেন না, তাদের জন্য সিঁড়ির পাশেই কলিংবেল লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। কলিং বেল চাপলেই পাসপোর্ট অফিসের কর্মকর্তা হাজির হয়ে সমস্যার সমাধান করেন। ব্যতিক্রমী এমন উদ্যোগকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন সাধারণ মানুষ। প্রত্যেকটি সরকারি অফিস ও কর্মকর্তাগুলো সৎ হলেই দেশ থেকে দুর্নীতি নির্মূল হবে এমন কথা বলছেন সাধারন মানুষ।

 

 

সাতক্ষীরা পাসপোর্ট অফিসে প্রতিদিন শত শত মানুষের যাতায়াত। ব্যতিক্রমী দুটি উদ্যোগ যেন নজর কাড়ছে সবার। অফিসের ভিতরে
আত্মপ্রেরণার দোকান ও দ্বিতীয় তলায় উঠা সিঁড়ির পাশে দেওয়া কলিং বেল। দোকানটিতে রয়েছে মাস্ক, বিস্কুট,পানির বোতল, চকলেট, চিপস, চানাচুরসহ বিভিন্ন সামগ্রী। সিঁড়ির পাশে ঝুঁলিয়ে দেওয়া ব্যানারটিতে লেখা রয়েছে, আপনার সমস্যায় আমি। শুধুমাত্র অসুস্থ্য এবং
প্রতিবন্ধী ব্যক্তি কলিং বেল চাপুন। সাথে সাথে অফিসার আপনার সেবায় এগিয়ে আসবেন। সাধারন মানুষের পাশাপাশি বীর মুক্তিযোদ্ধা, শাররিক প্রতিবদ্ধি ও অসুন্থ্য মানুষের জন্য পৃথক ব্যবস্থা।

 

 

পাসপোর্ট অফিসে এ নতুন সংযোজোন দেখে সত্যিই অবাক হচ্ছেন সেবা নিতে আসা সাধারন মানুষ। দোকানটি থেকে সততার পরিচয় মেলে। সাধারণত দোকান থেকে পন্য কিনে দোকানদারের কাছে টাকা দেয়া হয় কিন্তু এখানে সেটি নেই। নিজের মত করে নিয়ে নিজেই টাকা রেখে দিচ্ছেন সবাই। সেবা নিতে আসা মানুষ বলছে সত্যিই এটি অসাধারণ একটি ভালো বিষয়। সাতক্ষীরা পাসপোর্ট অফিসের এ কর্মকান্ড অন্যদের অনুপ্রানীত করবে এমন আশা সাধারন মানুষের।