যশোরের বাগআচড়ায় আওয়ামীলীগ অফিসে বোমা হামলা, গুলি ও ভাংচুর, ইউপি সদস্য সহ ৩ যুবলীগ কর্মী আহত : আটক ৪

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৬:৪৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২২

বেনাপোল, মহসিন মিলন: ফুটেজ এফটিপিতে দেয়া হলো যশোরের শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া বাজারে আওয়ামীলীগ অফিসে বোমা হামলা, গুলি ও ভাংচুর করেছে ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল খালেকের সমর্থকরা।

গতরাতে এ হামলায় ইউপি সদস্য সহ আরো দুই যুবলীগ কর্মী আহত হয়েছেন। হামলার ঘটনায় ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

আহতরা হচ্ছেন, নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য কামরুল হাসান (৩৮), কামরুল হোসেন (৩৬) ও টুটুল বিশ^াস (৩৪)। আহতদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান (বিদ্রোহী

প্রার্থী) আবদুল খালেক এ হামলায় সরাসরি নেতৃত্ব দেন বলে অভিযোগ করেন ও নৌকার পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বাগআঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ইলিয়াস কবীর বকুল।

গত ২৮ নভেম্বরের ইউপি নির্বাচনে আওয়ামীলীগের নৌকা প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনা চলছিল। নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল খালেক নির্বাচিত হন। শপথ নেওয়ার পর গতরাতে বাগঁআচড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে বোমা হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা।

আওয়ামীলীগের কার্যালয় ভাংচুরসহ বাগআঁচড়া বাজারে একাধিক স্খানে হাত বোমা নিক্ষেপ করা হয়। এ সময় আওয়ামীলীগ অফিসে পরাজিত চেয়ারম্যান ও বাগআঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ইলিয়াস কবীর বকুল অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। পরে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌছে দেয়।

ভয়ে আতংকে ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে নিরাপদ আশ্রয়ে চলে যায়। নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান (বিদ্রোহী প্রার্থী) আবদুল খালেক তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ প্রত্যাখান করেন।

তবে আজ সকালে নৌকার পরাজিত চেয়ারম্যান প্রার্থী ও বাগআঁচড়া  ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ইলিয়াস কবীর বকুলের পক্ষে নাজমুল ইসলাম নামে শার্শা থানায় ২৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা করেছেন।

শার্শা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বদরুল আলম খান বলেন, বাগআঁচড়া বাজারে আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে হামলার ঘটনায় পুলিশ দ্রæত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। এ ঘটনায় জড়িত ৪ জনকে আটক করা হয়েছে। বোমা হামলার আলামত উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে তিনি জানান।