পদ নাই রবিউল ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা-পেশায় বালু খেকু

CNNWorld24
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: 8:37 PM, January 10, 2021

মামুুনুর রশীদ মিঠু; লালমনিরহাট প্রতিনিধিঃ লালমনিরহাট সদরের খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের এক ওয়ার্ড যুবলীগ নেতা দীর্ঘ দিন তিস্তা নদীর চর থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে বিভিন্ন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি বিশেষের নিকট বিক্রি করে আসছেন।

আর তার এই অবৈধ কাজে ব্যবহার করছেন জেলার বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, বিশিষ্ট ঠিকাদারসহ সাংবাদিকদের নাম।

সরেজমিন দেখা যায়, সদরের খুনিয়াগাছ ইউনিয়নের  ১ নং ওয়ার্ডের বাগডোরা গ্রামের ফজলে রহমানের ছেলে, রবিউল ইসলাম (২৮) তার নিজস্ব ট্রাক্টর দিয়ে ড্রাইভার ও লেবারদের সহযোগীতায় তিস্তা নদীগর্ভ থেকে বালু নিয়ে যাচ্ছে।
খোঁজ নিয়ে যায় এ ঘটনা নতুন নয়। গত ৩ বছর ধরে   প্রশাসনের চোখের সামনে  এভাবেই চলছে কথিত ঐ যুবলীগ নেতার ব্যবসা।
অবৈধ এসব বালু বোঝাই ট্রাক্টরের কারনে ঐ এলাকার প্রায় দেড় কিঃমিঃ বাঁধের কাঁচা রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরেছে। গাড়ি চলাচলের জন্য সরিয়ে ফেলা হয়েছে, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ভাঙ্গন ঠেকাতে ব্যবহৃত অনেকগুলো ব্লক।
বিষয়টি নিয়ে রবিউলের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, বেশিরভাগ সময় ট্রাক্টর ব্যবহার হয় জমি চাষের কাজে। বছরের কিছু সময় নদীতে আমাদের জমি থাকায় সেখান থেকে বালু গাড়ীতে করে বিভিন্ন জায়গায় দেই।

অবৈধ ভাবে বালু উত্তলনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, ঠিকাদার,সাংবাদিকসহ অনেকের সাথে তার আত্মিয়তার সম্পর্কের কথা বলে বলেন, নদী থেকে বালু উত্তলন কোন বিষয় না। তিস্তা নদীতে আমাদের জমি আছে।এদিকে রবিউল যুবলীগে কোন পদে আছে তা জানতে খুনিয়াগাছ ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি শিমুলের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, রবিউল বর্তমানে যুবলীগের কোন পদে নেই। আর বালুর বিষয়ে তিনি বলেন এটি নতুন নয়, গত তিন বছর রবিউল এই ধরনের বালুর ব্যবসা করে আসছে।

নাম গোপন রাখার স্বর্থে ওই এলাকার অনেকে বলেন,আওয়ামী-লীগের বড় বড় নেতার চেয়ে ইউনিয়ন এবং ওয়ার্ড পর্যায়ের পাতি নেতাদের গরমী বেশী।দলের কোন পদে আছে তার খবর নাই,কি করে তার কোন পরিচয় নাই শুধু একটায় পরিচয় যেআেওয়ামী-লীগ করে বাছ সব মাফ উল্লেখ করে আরো বলেন,তারা যে দলের পরিচয় দিয়ে  অবৈধভাবে দীর্ঘ দিন ধরে বালু লুট-পাট করে আসছে,দিনের আলোয় সবাই আমরা দেখতে তবে প্রশাসন এটা দেখেন না কেন?

মজার বিষয় হলো যে দল যখন ক্ষমতায় থাকে ওই দলের নিচ থেকে উপর পর্যন্ত সবায় কে প্রশাসন প্রভূ ভক্তি করে এবং তেল মাখায় ফলে প্রশাসনের লোক জনেরা মব দেখতে পায় কিন্তু সরকার দলের নেতা কর্মীরা কোথায় কি করে বেড়াচ্ছে তা তারা দেখতে পান না এটাই হলো বড় সমস্যা।