লালমনিরহাটের করোনা ভ্যাক্সিন,৭ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রয়োগ শুরু ১৯ টি কেন্দ্র থেকে

CNNWorld24
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: 4:20 PM, February 2, 2021

মোস্তাফিজুর রহমান ,লালমনিরহাটঃ লালমনিরহাটের ৫ উপজেলার জন্য ইতোমধ্যে ৩৬ হাজার ডোজ করোনা ভ্যক্সিন এসে পৌঁছেছে। কড়া পুলিশ প্রহরায় করোনা ভ্যাক্সিন বহনকারী গাড়ী লালমনিরহাট সিভিল সার্জন কার্যালয়ে আসলে  সিভিল সার্জন ডাঃ নির্মলেন্দু রায় ভ্যাক্সিন বুঝে নেন। এ সময় লালমনিরহাট সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক সিরাজুল ইসলামসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সিভিল সার্জন নির্মলেন্দু রায় জানিয়েছেন, মহামারি করোনার প্রতিষেধক কাঙ্খিত ভ্যাক্সিন অনেকেই পাবে। তবে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সম্মূখ সারির স্বাস্থ্যকর্মীরা আগে পাবে। এছাড়া সম্মুখ সারির আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, গণমাধ্যমকর্মী, জনপ্রতিনিধি, সরকারি-বেসরকারিকর্মী, ব্যবসায়ী, ধর্মীয় প্রতিনিধি, রাজনীতিক সহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষ।

লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২টি, হাতীবান্ধা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২টি, কালীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২টি, আদিতমারী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২টি, লালমনিরহাট পুলিশ হাসপাতালে ১টি, লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ৮টি ও সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ২টি করোনা ভ্যাক্সিন টিকা প্রদানকারী টিম সহ মোট ১৯টি কেন্দ্রে টিকা প্রদানের জন্য টিম গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা সিলিভ সার্জন কর্মকর্তা ডাঃ নির্মলেন্দু রায়।

তিনি জানান, টিকা গ্রহণকারীদের পছন্দের টিকা নিতে পারবেন। প্রত্যেক টিমে দক্ষ টিকাদান কর্মী থাকবেন ২জন ও ভলান্টিয়ার কর্মী ৪জন করে থাকবেন। জেলায় ৩৮জন টিকাদানকারী ও ৭৬জন ভলান্টিয়ার কর্মী প্রস্তুত করা হয়েছে জেলাসিভিল সার্জন কার্যালয়ের সহকারী প্রধান পরিসংখ্যান কর্মকর্তা আব্দুল মান্নান জানান, ২০২১ সালের ৩১ জানুয়ারি রবিবার পর্যন্ত  ৪৫টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় ৫ হাজার ২২৬ জন ব্যক্তির শরীর থেকে করোনা ভাইরাসের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

এখন পর্যন্ত পরীক্ষার ফলাফল পাওয়া গেছে ৫ হাজার ১৮৫ জনের। এরমধ্যে করোনা সংক্রমিত হয়ে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা রোগী শনাক্ত ৯৬৩জনের মধ্যে ৯৪৫ জন সুস্থ্য হয়ে কাজে ফিরেছেন। অবশিষ্ট ১৮জনের মধ্যে ২ জন হাসপাতালে এবং ১৬ জন নিজ নিজ বাড়ীতে আইসোলেশনে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, লালমনিরহাট জেলায় প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ১১ এপ্রিল সদর উপজেলার গুড়িয়াদহ গ্রামের নারায়নগঞ্জ হতে ফেরত আসা এক রাজমিস্ত্রির শরীরে। শুরুর তারিখ জানতে চাইলে লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডাঃ নির্মলেন্দু রায় বলেন, ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে করোনা ভ্যাক্সিন দেওয়া শুরু করা হবে।

জেলায় নিবন্ধিত ব্যক্তিদের মধ্য থেকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে জেলার ১৯টি কেন্দ্র থেকে এ টিকা প্রদান করা হবে। টিকাদান পরবর্তীতে সময়ের জন্য চিকিৎসা প্রদানের জন্যও আমাদের প্রস্তুতি রয়েছে।লালমনিরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান বলেন, সরকারের সফলতার অংশ লালমনিরহাটে ৩৬ হাজার করোনা ভ্যাক্সিন এসেছে। পর্যায়ক্রমে সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে এ করোনা ভ্যাক্সিন দেওয়া হবে।