ভার্চুয়াল মুদ্রায় লেনদেন নয়, প্রচারও নিষিদ্ধ: বাংলাদেশ ব্যাংক

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৪:৩৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ৩০, ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশ ব্যাংক ভার্চুয়াল মুদ্রা বা ক্রিপ্টোকারেন্সিতে লেনদেন নিষিদ্ধ করেছে সেইসাথে সব ধরনের প্রচার -প্রচারণাও নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। সিআইডিতে পাঠানো বাংলাদেশ ব্যাংকের সাম্প্রতিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, কিছু সংবাদমাধ্যম পরামর্শ দিয়েছে যে ক্রিপ্টোকারেন্সি লেনদেন করা যেতে পারে। এই প্রসঙ্গে গতকাল বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) এক প্রজ্ঞাপনে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই বিষয়টি স্পষ্ট করেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে কোন ভার্চুয়াল মুদ্রা বা ক্রিপ্টোকারেন্সি বাংলাদেশ ব্যাংকের দ্বারা অনুমোদিত নয়। সমস্ত ব্যক্তি এবং সংস্থাকে অনুরোধ করা হয়েছে যে কোনও ধরণের ক্রিপ্টোকারেন্সি বা ভার্চুয়াল মুদ্রায় (যেমন বিটকয়েন, ইথেরিয়াম, রিপল ইত্যাদি) লেনদেনকে সমর্থন বা প্রচার করা থেকে বিরত থাকুন অথবা সম্ভাব্য আর্থিক ও আইনি ঝুঁকি এড়াতে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে, সাম্প্রতি বিভিন্ন বিনিময় প্ল্যাটফর্মে ভার্চুয়াল মুদ্রা বা ক্রিপ্টোকারেন্সিতে লেনদেন হচ্ছে। যেহেতু এই ভার্চুয়াল মুদ্রাগুলি কোন দেশের বৈধ কর্তৃপক্ষের দ্বারা জারি করা বৈধ মুদ্রা নয়, তাই তাদের বিরুদ্ধে কোন আর্থিক দাবির স্বীকৃতিও নেই। যেহেতু এই মুদ্রায় লেনদেন বাংলাদেশ ব্যাংক বা অন্য কোনো নিয়ন্ত্রক সংস্থা কর্তৃক অনুমোদিত নয়, তাই এই ভার্চুয়াল মুদ্রার ব্যবহার বৈদেশিক মুদ্রা নিয়ন্ত্রণ আইন, ১৯৪৭ এর অধীন; এটি সন্ত্রাসবিরোধী আইন, ২০০৯ এবং মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ দ্বারা সমর্থিত নয়।

ভার্চুয়াল মুদ্রায় অনাকাঙ্ক্ষিত লেনদেন অনলাইনে নামবিহীন / ছদ্মনাম প্রতিপক্ষের সাথে মানি লন্ডারিং এবং সন্ত্রাসবাদী অর্থায়ন আইন লঙ্ঘন করতে পারে। মূলত, ভার্চুয়াল মুদ্রায় অর্থ প্রদান এবং নিষ্পত্তি অনলাইন ভিত্তিক নেটওয়ার্কের মাধ্যমে সঞ্চালিত হয় এবং যেহেতু এটি কোনও কেন্দ্রীয় কর্তৃপক্ষ বা পেমেন্ট সিস্টেম নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষের দ্বারা স্বীকৃত নয়, গ্রাহকরা ভার্চুয়াল মুদ্রার সম্ভাব্য আর্থিক এবং আইনী ঝুঁকিসহ বিভিন্ন ঝুঁকির মুখোমুখি হতে পারে। এই ক্ষেত্রে, সম্ভাব্য আর্থিক এবং আইনি ঝুঁকি এড়ানোর জন্য, জনসাধারণকে বিটকয়েনের মতো ভার্চুয়াল মুদ্রায় লেনদেনকে সমর্থন বা প্রচার করা থেকে বিরত থাকার অনুরোধ করা হচ্ছে।