চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে-শিক্ষামন্ত্রী

CNNWorld24
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: 4:48 AM, November 25, 2020

নিউজ ডেস্কঃ তরুণদের মানব সম্পদে পরিণত করার জন্য শিক্ষায় বিনিয়োগের বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দিপু মনি

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) বাংলাদেশ প্রফেশনাল বিশ্ববিদ্যালের (বিইউপি) এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দিপু মনি বলেছেন, “আমাদের, তরুণ-তরুণীদের চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। শিক্ষায় বিনিয়োগের বিকল্প নেই।

অনেকে বলছেন যে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে অনেক লোক তাদের চাকরি হারাবে। তবে সেই সাথে অনেক সম্ভাবনা তৈরি হবে।

আমাদের সেই সম্ভাবনার জন্য আমাদের শিক্ষার্থীদের প্রস্তুত করা দরকার।

শিক্ষায় বিনিয়োগের বিষয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “শেখ মুজিবুর রহমান শিক্ষায় জিডিপির কমপক্ষে চার শতাংশ বিনিয়োগের কথা বলেছিলেন।

তবে আমরা এখনও তিন শতাংশের বেশি বিনিয়োগ করতে পারি না। তবে অন্য যেসব জিনিস বিনিয়োগ করা হচ্ছে, অন্যদিকে শিক্ষা খাতেও বিনিয়োগ করা হচ্ছে। কারণ তারা একটি উপযুক্ত পরিবেশগত শিক্ষার পরিবেশ নিশ্চিত করছে। আমাদের এটিও নিশ্চিত করতে হবে যে দারিদ্রতা উচ্চ শিক্ষায় কারও অ্যাক্সেসকে বাধা না দেয়।

বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে শিক্ষার মান এবং গবেষণার মান আরও বাড়ানোর আহ্বান জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী আরও বলেন, “সেখানে কত শিক্ষার্থী রয়েছে তা দেখার দরকার নেই। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলিকে তাদের নিজস্ব গুণ সম্পর্কে চিন্তা করা দরকার। বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে দেখতে হবে যে তারা শিক্ষার্থীদের জন্য কী নতুন জ্ঞান জোগাতে পারে যা দেশ ও বিশ্বের উপকারে আসবে।

এর আগে প্রধান অতিথি হিসাবে বিইউপি’র লার্নিং ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম, রিমোট প্রকিটরিং এবং প্লাসারিজম চেকার সফটওয়্যার উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে উপ-শিক্ষামন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বিইউপির প্রশংসা করে বলেন, “আমাদের দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলি র‍্যাঙ্কিংয়ে স্থান না পাওয়ার অনেক কারণ রয়েছে। চৌর্যবৃত্তির কারণে আমাদের দেশে উচ্চশিক্ষা যেমনটি হওয়া উচিত ছিল তেমন অনুশীলন করা যায়নি। শিক্ষার্থীরা উচ্চশিক্ষা গ্রহণ করতে আসে এবং পড়াশোনা ছাড়া কিছুই করে না। এর পেছনে অনেক কারণ রয়েছে। তবে উন্নত বিশ্বে যে কোনও বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত হয় তার সমস্ত উপাদানই বিইউপির রয়েছে। উচ্চশিক্ষায় অবশ্যই শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে হবে, শৃঙ্খলার ক্ষেত্রে কোনও ছাড় নেই। এজন্য বিইউপি এগিয়ে চলেছে।

বিইউপির উপাচার্য মেজর জেনারেল আতাউল হাকিম সরোয়ার হাসান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিইউপি সিনেট সদস্য ও প্রাক্তন মন্ত্রী লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব।) ফারুক খান সহ বিইউপি শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা।