বিস্কুট না থাকায় ছাত্র /ছাত্রীর চেয়ে শিক্ষকের উপস্থিতি বেশি।

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৩:৫০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার:কুড়িগ্রাম ফুলবাড়ী উপজেলার নাওডাঙ্গা ইউনিয়নে কুরুষা – ফেরুষা খন্দকার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে  ছাত্র-ছাত্রীর চেয়ে শিক্ষকের উপস্থিতির হার বেশি দেখা গেছে। বিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক ৩ জন আর ছাত্র ২ জন ।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক হাফিজুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমাদের বিদ্যালয়ে ছাত্র / ছাত্রীর সংখ্যা তুলুনা মুলকভাবে আনেক কম ক্লাস ফাইভে মাত্র ৭ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে   ২  জন ক্লাসে উপস্থিত হয়েছে। আমরা হোম ভিজিট করেও ছাত্র-ছাত্রীদের বিদ্যালয় মুখী করতে পারতেছি না। এর মূল কারণ হচ্ছে আগে বিদ্যালয়ে বিস্কুট প্রদান করত সরকার। এখন বিস্কুট না দেওয়ায় শিক্ষার্থীরা  ক্লাসে আসায়  অমনোযোগী হয়ে পড়েছে।আর এর একটি কারণ  প্রায় দেড় বছর করোনা কালীন বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় হাফেজিয়া মাদ্রাসা গুলোতে ছাত্র / ছাত্রীরা চলে  যাওয়ায়  তারা আর ফিরছেনা ।

যদিও দোষ অন্যের ঘাড়ে চাপিয়ে দেন, কিন্তু আসলে দায়িত্বে অবহেলা আছে  প্রধান শিক্ষকের। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অভিভাবকরা জানান, এরকম প্রধান শিক্ষকের দ্বারা শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নের আশা করা অসম্ভব’। তারা আরও  জানান,আমাদের ছেলে মেয়েরা ভালো প্রতিষ্ঠানে পড়তে চায়। সে রকম পরিবেশ নাই সেখানে এর মুল কারণ প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে অবহেলা। তাই উপর  মহলের কাছে আমাদের দাবি, এলাকায় এসে সঠিক তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহনের মধ্যদিয়ে সু-শিক্ষার স্বাভাবিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনা হোক।

এবিষয়ে জেলা প্রার্থমিক শিক্ষা কর্মক্রতা শহীদুল ইসলাম সকলের উদ্দেশ্যে জানান, প্রায় সব স্কুল প্রধানরাই রাজনীতির সাথে জড়িত থাকায় শিক্ষা ব্যবস্থার অবনতি কুড়িগ্রামে।