মিয়ানমার পুলিশের ১৯ সদস্য সীমান্ত পেরিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন ভারতে

CNNWorld24 Dhaka
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: ৯:২২ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ৬, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: একজন ভারতীয় পুলিশ কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলছেন, এক ভারতীয় পুলিশ কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার রয়টার্সকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

১৯ পুলিশ কর্মী সেনা অভ্যুত্থান মানতে না পেরে মিয়ানমারের পুলিশ সদস্যরা দেশ ত্যাগ করেন এবং ভারতে আশ্রয় নেন। মিজোরামের চম্পাই ও সরচীপ জেলার সীমান্ত দিয়ে প্রবেশের পরে তারা দেশে আশ্রয় নিয়েছেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক ভারতীয় পুলিশ কর্মকর্তা রয়টার্সকে ৪ মার্চ বৃহস্পতিবার এ কথা জানিয়েছেন।

আশ্রয়প্রার্থীরা সকলেই বার্মিজ পুলিশের নিম্নপদস্থ সদস্য হিসাবে পরিচিত। ভারতে প্রবেশের সময় তাদের সবাই নিরস্ত্র ছিল। তবে বিষয়টি স্পর্শকাতর হওয়ায় তাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি।

মায়ানমারে ১ ফেব্রুয়ারি সামরিক অভ্যুত্থানের পরে, আশঙ্কা করা হচ্ছে যে দেশ থেকে আরও অনেকে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করতে পারে।গোয়েন্দা তথ্যও এর ইঙ্গিত দেয়।

এদিকে, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী ও পুলিশ সদস্যরা চীনা অ্যাপ টিকটক ব্যবহার করে বিক্ষোভকারীদের গুলি করার হুমকি দিয়েছে বলে জানা গেছে। বুধবার কমপক্ষে ৩৮ জন জান্তাবিরোধী বিক্ষোভকারীকে হত্যা করা হয়েছিল, তারা এই ধরনের হুমকি দেওয়ার জন্য টিকটক ব্যবহার করে। তবে, এমন পরিস্থিতি সত্ত্বেও, প্রতিবাদকারীরা জীবন উপেক্ষা করে আবারও রাস্তায় নেমেছিল।

উল্লেখ্য,গত ১ ফেব্রুয়ারি সেনা অভ্যুত্থানের পর থেকে মায়ানমারে ব্যাপক বিক্ষোভ এবং নাগরিক অসহযোগ আন্দোলন চলছে। বিক্ষোভকারীরা সেনা শাসনের অবসান এবং দেশটির নির্বাচিত নেতাদের মুক্তির দাবি করছেন।বৃহস্পতিবার পশ্চিম ইয়াঙ্গুনের শহর পাথেইন-এ বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ গুলি ছুড়েছে। তবে এখন পর্যন্ত সেখানে কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। এর আগে বুধবার পুলিশ ও সেনাসদস্যরা বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে তাজা গুলিবর্ষণ করে।। কোনও সতর্কতা সংকেত ছাড়াই বিভিন্ন শহর ও নগরে গুলি চালানো হয়।

সু চির সমর্থকরা বলেছেন যে তারা সামরিক শাসনের অধীনে থাকতে চান না। সু চির মুক্তির আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তারা।