চীন করোনায় জনসংখ্যা বৃদ্ধি করতে চায়- আর্থিক সহায়তা দেবে সরকার

CNNWorld24
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: 1:34 PM, November 24, 2020

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: সারা পৃথিবীতে করোনার দাপট বাড়ছে।চীনেও মারাত্মক আঘাত হেনেছে করোনা । এই মহামারীর মাঝেই চীন তার জনসংখ্যা বৃদ্ধির কৌশল নিয়ে কাজ করছেন। চীন দেশে শিশুদের জন্ম বাড়ানোর জন্য একটি নতুন নীতি গ্রহণ করেছেন।।

চীনা সরকারি সংবাদমাধ্যম জানান , চীনের প্রবীণ জনসংখ্যা বাড়ছে। এই সমস্যা সমাধানের জন্য, শিশুদের জন্ম দেওয়ার বিষয়ে জোর দেওয়া হচ্ছে।

চায়না ডেইলি’র রিপোর্ট অনুসারে, চীনে প্রবীণদের সংখ্যা দ্রুত বাড়ছে। একই সাথে অন্যান্য দেশের মতো চীনও এখনও করোনার প্রাদুর্ভাব থেকে মুক্ত হয়নি। তবে সরকারী পরিসংখ্যান অনুসারে, চীনা করোনার ভাইরাস থেকে এখন পর্যন্ত ৪,৬৩৪ জন মারা গেছে। যা বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশের তুলনায় অনেক কম।

চীনা গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, চীন বর্তমানে এমন দম্পতিদের আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে যারা বেশি বাচ্চার প্রত্যাশা করছেন।

রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীন জনসংখ্যা সমিতির সহ-সভাপতি ইউয়ান বলেছেন, উন্নত জনসংখ্যা নীতি চালু করা হবে।

বিশ্বের বৃহত্তম জনসংখ্যা থাকা সত্ত্বেও চীন শিশুদের জন্মের জন্য চাপ দিচ্ছে যাতে দেশে যুবকের অভাব না হয়।কারণ চীনে মানুষের বার্ধক্যের বৃদ্ধির হার খুব বেশি।

১৯৭৮সালে, চীন “ওয়ান চাইল্ড” নীতি ঘোষণা করেন। এই নীতি লঙ্ঘনকারী দম্পতিদেরও জরিমানা করা হয়েছে। এমনকি তাদের চাকরি কেড়ে নেওয়া হয়। গর্ভপাতও প্রচুর পরিমাণে করা হয়েছিল। এ সময় চীনের লক্ষ্য ছিল দেশের দারিদ্র্য হ্রাস করা। কারণ চীনের জনসংখ্যা দ্রুত বাড়ছিল। ২০১৫ সালে চীন এ বিষয়ে ছাড় দিয়েছে।

সূত্র:kolkata24x7