ইটালিতে বাড়ি মাত্র ১০০ টাকায় !

CNNWorld24
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: 7:11 PM, November 30, 2020

আন্তর্জাতিক ডেস্কঃ ইতালির রাজধানী রোমের দক্ষিণ-পূর্বে ১৪০ মাইল দক্ষিণ-পূর্বে মলিস অঞ্চলের কাস্ট্রোপিগানানো গ্রামে পরিত্যক্ত বাড়িগুলি এক ইউরোর জন্য নতুন বাসিন্দাদের কাছে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

ইসলাম টাইমস ডেস্ক: চলতি বছরের শুরুতে ইটালিতে ১’শত টাকায় একটি বাড়ি বিক্রি করার খবর দেশ-বিদেশের গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল। বছরের শেষে আবার এ জাতীয় খবর প্রকাশিত হয়েছ।

গেল রবিবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ইতালিতে আবারও এক ইউরোতে বিক্রি হচ্ছে বাড়ি। তবে এটি অন্য একটি গ্রামে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ ইতালির মলিস অঞ্চলে বাংলাদেশি মুদ্রা প্রতি ইউরো প্রায় ১০০ টাকায় বাড়ি বিক্রি হচ্ছে।

রাজধানী রোমের দক্ষিণ-পূর্বদিকে ১৪০ মাইল দক্ষিণ-পূর্বে মলিস অঞ্চলের কাস্ট্রোপিগানানো গ্রামে পরিত্যক্ত বাড়িগুলি এক ইউরো করে নতুন বাসিন্দাদের কাছে বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সিসিলির সান্টো স্টেফানো ডি সেসানিয়ো এবং সিসিলির আব্রুজ্জোতে নতুন  বাসিন্দাদের কাছে বাড়ি বিক্রি খবরের পর এই মাসে আবার মোলিসে বাড়ি বিক্রির খবর এলো।

তবে ইতালির অন্যান্য অঞ্চলে কাস্ত্রোপিগানানো গ্রামের বাসিন্দারা এমন একটি প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে চান যা এক ইউরোর জন্য পরিত্যক্ত বাড়িগুলো এক ইউরোতে ২০ সেন্টে বিক্রি করতে চান।

ইতালির দূতাবাসগুলোকে কাস্ট্রোপিগানানো গ্রামে বাড়ি বিক্রির কথা জানানো হয়েছে। যে কোনও দেশের নাগরিকরা এখানে একটি বাড়ি কিনতে পারবেন।

তবে যে কেউ চাইলে বাড়ি কিনতে পারে এমনটা নয়। আগ্রহী ব্যক্তিদের বাড়ি কেনার উদ্দেশ্যে, তিনি কীভাবে এটি ব্যবহার করবেন ইত্যাদি বিষয়ে একটি বিস্তারিত পরিকল্পনার সাথে মেয়র নিকোলা স্ক্যাপিলিটিকে ইমেল করা উচিত। মেয়র আগ্রহী ব্যক্তিদের মধ্য থেকে ১০০ টি সম্ভাব্য ক্রেতা নির্বাচন করবেন।

মেয়র নিকোলা স্ক্যাপিলতি সাংবাদিকদের বলেন, “আমাদের গ্রামে প্রায় ১০০ টি পরিত্যক্ত বাড়ি রয়েছে।

‘আমরা চাই না যে আমাদের শহরের লোকেরা কম দামে বাড়ি বিক্রি করার খবরে হোঁচট খাবে। সুতরাং আমরা ধীরে ধীরে সম্ভাব্য ক্রেতাদের নির্বাচন করব। ‘

তিনি বলেন, “যারা বাড়ি কিনতে চায় তাদের   স্বাগত। তবে আমার সরাসরি এই ঠিকানাটিতে ইমেল করতে হবে – (nicola.scapillati[AT]me.com)। বাড়ি কেনার উদ্দেশ্য এবং তারা বাড়ির দিয়ে কী করতে চায় সে সম্পর্কে তাদের ইমেলতে অবহিত করতে হবে। ‘

তিনি আরও বলেছেন, গ্রামের রাস্তা খুব সংকীর্ণ তাই গাড়ি চালানোর কোন সুযোগ নেই।

বিষয়টি আরও আনুষ্ঠানিক করার জন্য মেয়র স্ক্যাপিলিট্টি বিদেশে ইতালীয় দূতাবাসগুলোতে নোটিশ পাঠিয়েছেন।

মেয়র আরো বলেছেন যে, যে কেউ বাড়ি কিনলে তাকে কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। উদাহরণস্বরূপ, বাড়ি কেনার তিন বছরের মধ্যে এটি সংস্কার করতে হবে। গ্যারান্টি পেমেন্ট হিসাবে আপনাকে দুই হাজার ইউরো দিতে হবে। বাড়িটি সংস্কারের পরে এই অর্থ ফেরত দেওয়া হবে।

তাঁর মতে বাড়িগুলি এতটাই জরাজীর্ণ যে কোনও মুহুর্তেই সেগুলো ভেঙে পড়তে পারে। তাই সংস্কার ছাড়া ঘরে থাকার সুযোগ নেই।

মেয়র আরও বলেছিলেন যে ইতোমধ্যে ইউরোপ থেকে বেশ কয়েকটি ব্যক্তি তাঁর সাথে যোগাযোগ করেছেন।

খবরে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুসারে, কাস্ট্রোপিগিনানো কোনও বড় গ্রাম নয়। এখানে কেবল একটি রেস্তোঁরা রয়েছে। এছাড়াও রয়েছে: একটি বার, একটি ওষুধের দোকান এবং কয়েকটি ছোট আবাসিক হোটেল। সব মিলিয়ে এটি নির্জন গ্রাম।

১৯৩০ সালে গ্রামের জনসংখ্যা প্রায় আড়াই হাজার ছিল। এখন তা নেমে এসেছে ৯০০-এ। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পরে এই গ্রামের বাসিন্দারা উন্নত ভবিষ্যতের আশায় বিভিন্ন অঞ্চলে পাড়ি জমান। যুবকরা কাজের জন্য বড় বড় শহরে পাড়ি দেওয়া শুরু করার পরে ১৯৬০ এর দশকে এটি ধীরে ধীরে নির্জন গ্রামে পরিণত হয়েছিল।

এখন গ্রামের ৬০ শতাংশই ৮০ বছরের বেশি বয়সী।

“আমি আপনাকে কোনও প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি না,” বললেন মেয়র নিকোলা স্ক্যাপিলতি। বরং আমি নীরবতা ও শান্তির প্রতিশ্রুতি দিই। গ্রামের বাতাস পরিষ্কার। দিনের ক্লান্তি থেকে মুক্তি পেতে খাঁটি প্রকৃতি এবং সমৃদ্ধ খাবার রয়েছে। ‘

মেয়র এই নির্জন গ্রামটিকে পুনরুজ্জীবিত করতে চায়। তিনি বলেছেন যে কোনও বাড়ির সম্পূর্ণ সংস্কারের জন্য সর্বনিম্ন ৩০,০০০ থেকে ৪০,০০০ ইউরো প্রয়োজন। তিনি আরও বলেছেন, যারা ইতালিতে ট্যাক্স দেয় তারা বাড়ি কিনতে চাইলে পরিবেশ বান্ধব বাড়িগুলির জন্য রাষ্ট্রীয় সহায়তা পাবেন।

সূত্রঃমার্কিন নিউজ এজেন্সি