কোটি কোটি পরিত্যক্ত টায়ারও এখন সম্পদ!

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৫:০৫ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০২১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: কোটি কোটি পরিত্যক্ত টায়ারও এখন সম্পদ! ফেলে দেয়া প্রায়-৪ কোটি-২০ লক্ষেরও বেশি টায়ারকে কাজেলগিয়ে পুনুরায় ব্যবহারের যোগ্য করে তুলছে কুয়েত। পুরনো টায়ারগুলো ব্যবহার করে তৈরী করা হচ্ছে কার্পেট, ব্যাগসহ মানুষের নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র। এমন উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন পরিবেশবিদরা।

কুয়েত হলো বিশ্বের অন্যতম পুরনো টায়ার ফেলার ভাগাড় হিসেবে পরিচিত। যেখানটায় প্রতিদিনই পোড়ানো হয় পুরনো টায়ার। তাতে নির্গত হয় রাসায়নিক পদার্থ এবং কালো ধোঁয়া। এতে করে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছেন কুয়েতবাসী।

পরিবেশ দূষণ থেকে পৃথিবীকে বাঁচাতে সম্প্রতি প্রায়-৪কোটি-২০ লক্ষেরও বেশি টায়ারকে পুনুরায় ব্যবহারের যোগ্য করে তুলছে দেশটি। গ্লোবাল রিসাইকেল কোম্পানী এপসকো ফেলা দেয়া টায়ারগুলো পুনুরায় ব্যবহার যোগ্য করার একটি প্রকল্প হাতে নেয়।

কুয়েত সরকার ও বেরকারী সংস্থার সহযোগিতায় এ টায়ার প্রক্রিয়াজাত করে তৈরী করছে কার্পেট,ব্যাগসহ মানুষের নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র।

আল-খায়ের গ্রুপের (সিইও) হামুদ আল-মারি জানান, জানুয়ারী থেকে এ পর্যন্ত আমরা-২৫ লক্ষ টায়ারকে পুনর্ব্যবহারযোগ্য করেছি। পুরনো টায়ার থেকে রাসায়নিক  সংগ্রহ করে  তা ডিজেল ও জ্বালানি উৎপাদনও করছি আমরা।

সমাজে কল্যাণের জন্য টায়ারগুলো না পুড়িয়ে সেগুলোকে ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় পণ্য তৈরী করা হচ্ছে। আর সেগুলো রপ্তানী করাও সম্ভব।

কুয়েতে পরিসংখ্যান ব্যুরোর তথ্যানুসারে- ২০১৯ সালে-৪৫ লক্ষ মানুষের জন্য-২৪ লক্ষ যানবাহন ছিল।

গ্লোবাল রিসাইকেল কোম্পানীটি বছরে-৩০ লক্ষেরও বেশি ফেলে দেয়া টায়ারকে পুনুরায় ব্যবহার যোগ্য করতে সক্ষম।