শিশুমৃত্যু: হাসপাতালের মালিক জেলে

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৬:৫১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২২

টাকা দিতে না পারায় যমজ সন্তানের মৃত্যুর ঘটনায় আমার বাংলাদেশ হাসপাতালের মালিক মোহাম্মদ গোলাম সারওয়ারকে দুই দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার (১১ জানুয়ারি) ঢাকা মহানগর হাকিম দেবদাস চন্দ্র অধিকারী তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

দুই দিনের রিমান্ড শেষে গোলাম সারওয়ারকে মঙ্গলবার আদালতে হাজির করে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে বলে জানান মোহাম্মদপুর থানার উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম।
আসামিদের পক্ষে তার আইনজীবী জামিনের আবেদন করলেও তিনি তা শুনানির জন্য রাখার আবেদন করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, বুধবার তাকে জামিনের জন্য হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। মোহাম্মদপুর থানার সাধারণ নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক শরিফুল ইসলাম সিএমএম আদালতকে এ তথ্য জানান।

৮ জানুয়ারি গোলাম সারওয়ারকে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

হাসপাতালের আইসিও থেকে ছাড়ার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ডিএমসি) হাসপাতালে নেওয়ার পথে শিশুটির মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় দুই সন্তানের মা আয়েশা আক্তার বাদী হয়ে গত ৮ জানুয়ারি মোহাম্মদপুর থানায় মামলা করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ঠান্ডাজনিত কারণে সোহরাওয়ার্দী তার যমজ সন্তান আবদুল্লাহ ও আহমেদকে ৩১ ডিসেম্বর হাসপাতালে ভর্তি করেন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাদের আইসিইউতে নিয়ে যেতে বলা হয়। হাসপাতালে সিট না থাকায় তিনি তাকে সাভারের একটি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এ সময় এক দালাল শিশু দুটিকে পাশের হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দিয়ে বলেন, খরচ সরকারি হাসপাতালের মতোই কম।

দালাল জানায়, শিশু দুটিকে আমার বাংলাদেশ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ সময় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দুই শিশুর ১ দিনে চিকিৎসা বিল দেখিয়েছিল ১ লাখ ২৬ হাজার টাকা। কয়েক দফায় ৫০,৫০০ টাকা দেন শিশুদের মা।

ওই নারী জানান, বাকি টাকা পরিশোধ করতে না পারায় তাদের কোনো লাভ হয়নি। অবশেষে গত ৬ জানুয়ারি বিকেল ৩টার দিকে হাসপাতালের মালিক আমার সন্তানসহ আমাকে জোরপূর্বক উচ্ছেদ করে।

এরপর শাহিন নামে এক যুবক ও দুই শিশুকে নিয়ে ঢামেক হাসপাতালে যাই। আমি সেখানে পৌঁছানোর আগেই আমার এক ছেলে মারা যায়। আরেক ছেলের অবস্থাও ভালো