সরিষাবাড়ীতে আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা

CNNWorld24
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: 11:29 PM, February 8, 2021

সোহেল রানা,সরিষাবাড়ী: জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে আইন শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।এতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিহাব উদ্দিন আহমদ সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মোঃ গিয়াস উদ্দিন পাঠান বক্তব্য রাখেন।

এ সময় আরোও বক্তব্য রাখেন- উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ গাজী মোহাম্মদ রফিকুল হক জেলা আওয়ামী লীগের উপদপ্তর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম মানিক,সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মোঃ ফজলুল করিম, পোগলদিঘা ইউপি চেয়ারম্যান সামস উদ্দিন, মনছুর আলী খান, এড.মতিয়র রহমান তালুকদার স্মৃতি সংসদের সভাপতি আজমত আলীস মাষ্টার,সরিষাবাড়ী উপজেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবুল হোসেন,আওনা ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ বেলাল উদ্দিন, সাতপোয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবু তাহের প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সরিষাবাড়ীতে গাছ কর্তনে বাধা প্রদানকারীকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ সরিষাবাড়ী প্রতিনিধি জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে গাছ কর্তনে বাধা প্রদানকারীকে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ ওঠেছে। গতকাল সোমবার দুপুরে উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের গোবিন্দ নগর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।স্থানীয় ও ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে-সরিষাবাড়ী উপজেলার ডোয়াইলইউনিয়নের গোবিন্দ নগর গ্রামের মৃত বেলায়েত হোসেন এর ছেলে আব্দুল লতিফ (৫২) এর সিমানার কাঠাল গাছ জোর পুর্বকভাবে একই বাড়ীর আমজাদ হোসেন অবসর)শিক্ষক ও তার ছেলে মেহেদী হাসান অনিক কাটতে যায়।

এ সময় আব্দুল লতিফ গাছ কর্তন করতে বাধা দিলে তাকে আমজাদ হোসেন (অবসর শিক্ষক) ও তার ছেলে মেহেদী হাসান অনিক এবং রুপা বেগম ও মিলন মিয়া লাঠি শোঠা নিয়ে মারপিট চলাকালীন মেহেদী হাসান অনিক ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মাথায় কোপ দেয় এবং বাম চোখের নিচে আঘাত ও কাটা রক্তাক্ত জখম করে। পরে স্থানীয় লোকজন উদ্ধার করে আব্দুল লতিফ কে সরিষাবাড়ী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্ধেসঢ়;্র নিয়ে এলে তার অবস্থা বেগতি দেখে কর্তব্যরত মেডিকেল অফিসার ডাঃ নাঈমা তাজরীন উন্নত চিকিৎসার জন্য জামালপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন।
এ ব্যাপারে সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মোঃ ফজলুল করীম জানান, এ বিষয়ে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে।