গোলাপ ফুলের বিস্ময়কর ৫টা উপকারিতা

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ১১:০৪ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৩১, ২০২১

অনলাইন স্টাডি:গোলাপ ফুল তার সৌন্দর্য ও সুগন্ধ দিয়ে মানুষের মন জয় করে নিয়েছে বারবার। মনের মাঝে এই ফুল যেন একরাশ আলোর কিরণ নিয়ে আসে, আর যোগায় প্রাণের আহার, যাবতীয় মনখারাপের ওষুধ হিসাবে যেন কাজ করে আশ্চর্য এই ফুল।তাইতো প্রাচীনকাল থেকেই নানান প্রেমের গল্প, কবিতা এবং জীবনের সব রকমের শৈল্পিক ও সৃষ্টিশীলতায় গোলাপ ফুল অবধারিতভাবেই তার জায়গা দখল করে নিয়েছে। কিন্তু এটা জানেন কি? গোলাপ ফুল আপনাকে স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিষয়ে কত রকমের উপকার দিতে পারে? শরীর, মন এবং ত্বকের ওপর এর একটা বিশেষ ইতিবাচক প্রভাব আছে আর সে কারনেই প্রাচীন কাল থেকেই একে ব্যবহার করা হচ্ছে।

 

সৌন্দর্যের উপাদান হিসেবে গোলাপ ফুলের  ব্যবহার সু-পরিচিত হলেও গোলাপ যৌনজীবনে তৃপ্তি দেয়, চাপ-ধকল ও ওজন কমাতেও সাহায্য করে থাকে। গোলাপ ফুলের সৌন্দর্যে আর স্বাস্থ্য সংক্রান্ত বিস্ময়কর ৫টি উপকারিতার কথা এখানে বর্ণনা করা হল।

১.গোলাপ ফুল ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে: গোলাপ ফুলের পাঁপড়ির মধ্যে এমন এক ধরনের  উপাদান আছে যা মেটাবোলিজমের উন্নতি ঘটিয়ে শরীর থেকে টক্সিন বের করে দেয়। রোজে এটি খেলে সেটা অনুভূতির তৃপ্তি দেবার সাথে সাথে বেশী পরিমাণ খানা খাওয়াও আটকায়। এটা স্বাভাবিকভাবে ওজন কমাতেও সাহায্য করে।

গরম জলে টাটকা গোলাপ ফুলের  পাঁপড়ি দিন এবং জলের রং ফ্যাকাসে লাল হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। মিশ্রণের মধ্যে সামান্য পরিমান মধু ও দারুচিনির পাউডার মেশান। অতিরিক্ত মেদ-ভুড়ি ঝরাতে রোজ এই চা পান করুন।

২.গোলাপ ফুল চাপ-ধকল আর  বিষণ্ণতা কমায়: অবসাদ-ক্লান্তি আর চাপ-ধকল থেকে ইনসোমনিয়া ও অস্থিরতা এবং ছটফটানি হয় যা থেকে তৈরী হয় উদাসীনতা এবং বাড়ে অস্বস্তি । গোলাপের পাঁপড়ি এবং তার সুবাস এ সমস্যা দূর করতে পারে।

গরম জল বানিয়ে তার মধ্যে কয়েকটা গোলাপ ফলের পাঁপড়ি ছড়িয়ে দিন। গরম ভাবটা ফুলের সুবাস বের করে। শরীর এবং মনকে আরাম পাইয়ে দেবার জন্য এই জল দিয়ে স্নান করুন ফলাফল নিজেই বুঝবেন।

৩.অর্শের সমস্যা দূর করুন গোলাপ ফুলে: গোলাপ ফুলের পাঁপড়িতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার ও জলীয় উপাদান থাকে। আর এর মধ্যের উপাদানগুলি শরীর থেকে টক্সিন বের করে দিয়ে হজমে সাহায্য করে থাকে।আর এগুলো অর্শেরও রক্তপাত বন্ধ করে যন্ত্রণা উপসমে সাহায্য করে।

গোলাপ ফুলের পাঁপড়ি এবং জলের পুরু মিশ্রণ তৈরী করুন। পাইলসের রক্তপাত নিরাময়ের জন্য তিন দিন খালি পেটে এই মিশ্রণ খান।

৪.অ্যাস্ট্রিনজেন্ট হিসেবে কার্যকারি এই ফুল: গোলাপ ফুলের জ্বল ত্বকের জ্বালা ফুসকুড়ি নিরাময় করে থাকে, ত্বকের তেলে তেলে ভারসাম্য বজায় রাখে  এবং তাকে নমনীয় করে তোলে। এটা যথোপযুক্ত অ্যাস্ট্রিনজেন্ট এবং গভীর ক্লিনজারে এবং টোনার হিসেবে কাজ করে থাকে। এটা স্বাভাবিকভাবেই আপনাকে কম বয়সী করে দেয়।

গোলাপ ফুলের পাঁপড়ির মধ্যে অ্যান্টি অক্সিডেন্ট এবং অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান থাকে। যা ত্বকের অস্বস্তি এবং চুলকানির উপশম করে ত্বককে আরও আরামদায়ক করে তোলে । ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে রোজ গোলাপ জ্বল দিয়ে মুখ ধোয়েনিন।

৫.প্রাকৃতিক উপায়ে ব্রণ নিরাময় করে গোলাপ ফুল:গোলাপ জ্বল মানে গোরাপ ফুলের পানি। এই গোলাপ জ্বল একটা উৎকৃষ্ট মানের ময়েশ্চারাইজার। এর মধ্যে ফিনাইল ইথানল এবং অ্যান্টিসেপ্টিক উপাদান যথেষ্ট পরিমানে থাকে যা ব্রণ কমায়। আর গোলাপের পাঁপড়ির অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণাগুণ ব্রণকে শুকিয়ে দেয়।

সে কারনে মেথির বীজের সাথে গোলাপ জলের পেস্ট তৈরী করে মুখে লাগান এবং কিছুক্ষণ পরে ঠাণ্ডা পানিতে  উত্তম রুপে ধুয়ে ফেলুন।