সম্পদের হিসাব দিতে সরকারী চাকুরিজীবীদের ‘চিঠি’

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৪:০৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৫, ২০২১

অনলাইন ডেস্ক: সরকারী কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা, ১৯৭৯ অনুসারে, টানা পাঁচ বছরের জন্য সরকারী চাকুরিজীবীদের সম্পদ বিবরণী দাখিল করার বিধি রয়েছে। তবে অনেক ক্ষেত্রেই এই বিধি মানা হচ্ছে না; এই প্রসঙ্গে, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় বিধি প্রয়োগ করে সম্পদের হিসাব রক্ষণসহ বিধি মেনে চলার জন্য সমস্ত মন্ত্রনালয় ও বিভাগের সিনিয়র সচিব / সচিবকে চিঠি দিয়েছেন। মন্ত্রণালয়ের শৃঙ্খলা-৪ শাখা থেকে সম্প্রতি এই চিঠি পাঠানো হয়েছে।

উপ-সচিব নাফিসা আরেফিনের স্বাক্ষরিত এই চিঠিতে বলা হয়েছে, সরকারী কর্মচারীদের স্থাবর সম্পত্তি অর্জন , বিক্রয় ও সম্পদ বিবরণী দাখিলের বিষয়ে সরকারী কর্মচারী (আচরণ) বিধিমালা, ১৯৭৯ এর ১১, ১২ এবং ১৩ এর বিধি বিধানকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সুশাসন নিশ্চিতে আইনে উল্লিখিত বিধিগুলি কর্মকর্তাদের কার্যকরভাবে অনুসরণ করা যায় কিনা তা নিশ্চিত করার জন্য প্রধানমন্ত্রী সংশ্লিষ্ট সমস্ত মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের দৃঢ় নির্দেশনা দিয়েছেন।

এই পরিস্থিতিতে, সরকারী চাকুরি আইন, ২০১৮’র তাদের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রশাসনিক মন্ত্রণালয় / দফতর / অধস্তন সংস্থায় কর্মরত সমস্ত সরকারী কর্মকর্তাদের সম্পদের বিবরণী দাখিল, সম্পদের বিবরণের ডাটাবেস প্রস্তুত করে এবং সম্পর্কিত মন্ত্রণালয়’র অনুমতি গ্রহণ করে স্থাবর সম্পত্তি অর্জন ও বিক্রয় র অনুমতি গ্রহণের বিষয়ে এই চিঠিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে সরকারি কর্মচারী আচরণবিধির বিধিমালা, ১৯৭৯’র বিধি ১১, ১২ এবং ১৩ এর পুরোপুরি অনুসরণের মাধ্যমে জরুরি ভিত্তিতে তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

চিঠিতে সরকারী কর্মচারীর জমি / বাড়ি / ফ্ল্যাট / সম্পত্তি ক্রয় বা অর্জন ও বিক্রির অনুমতি নেওয়ার জন্য একটি নমুনা আবেদন ফর্ম এবং বিদ্যমান সম্পত্তির বিবরণী জমা দেওয়ার জন্য একটি ছকও চিঠির সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।