চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় ভিপি নুরের দলের নেতা-কর্মীসহ গ্রেপ্তার- ১০

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ৩:৫৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০২১

নিউজ ডেস্ক:চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায় ভিপি নুরের দলের নেতা-কর্মীসহ গ্রেপ্তার ১০। চট্টগ্রাম নগরীর জেএম সেন হলে পূজামণ্ডপে হামলা,ব্যানার-পোস্টার ছেঁড়া এবং পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগে-১০ জনকে গ্রেপ্তার করেছেন পুলিশ।

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরুর রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ, চট্টগ্রামের-৯ নেতাকর্মী রয়েছেন।

এসব নেতা-কর্মীর নেতৃত্বে ও পরিকল্পনায় মিছিল এবং পূজামণ্ডপে হামলার পাশা-পাশি ব্যানার-পোস্টার ছেঁড়ার ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ

২২ অক্টোবর শুক্রবার চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) বিজয় বসাক জানান, মিছিলের ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা এবং তদন্ত করে সংশ্লিষ্টতা পাওয়ায় তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এখন আমাদের কাছে পরিচয় তারা অপরাধী। অপরাধ করেছে বলেই আমরা তাদের আইনের আওতায় নিয়ে এসেছি।

তিনি বলেন, এই ঘটনার সাথে এবং পেছনে যারা জড়িত আছে সবাইকেই আইনের আওতায় আনা হবে পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও জানান, নেতৃত্ব প্রদানকারী ও পরিকল্পনাকারীকে আমরা পেয়েছি। তবে কখনোই আমরা বলছি না এরাই মূল পরিকল্পনাকারী। তদন্তে আরও কিছু বের হতেও পারে। আমরা কিছু টেলিফোনেরও কথোপকথন পেয়েছি, সেগুলো পর্যালোচনা করছি।

চট্টগ্রাম কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নেজাম উদ্দিন জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানতে পেরেছি গ্রেপ্তারকৃতরা হামলার পরিকল্পনা করেছেন। পরিকল্পনা অনুসারে সাধারণ মুসল্লিদের কাজে লাগিয়েছেন। সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্য এ হামলার ঘটনা। বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ, চট্টগ্রামের নেতাদের পরিকল্পনাতেই চট্টগ্রামের জেএম সেন হলে হামলার ঘটনাটি ঘটেছে।

তিনি আরও জানান, গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে পাঠিয়ে ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হবে আর এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে চট্টগ্রাম নগরীর জেএম সেন হলে হামলার ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায়-১০ জনকে গ্রেপ্তার করেন কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

পুলিশ জানান, ভিডিও ফুটেজ দেখে বৃহস্পতিবার রাত ৮টা হতে রাত ১টা পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই- ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে ঘটনার দিন মিছিলে নেতৃত্ব দেয়া কয়েকজনও রয়েছেন।

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে আছে বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ, চট্টগ্রাম মহানগরের আহ্বায়ক নাছির, সদস্য সচিব মিজানুর রহমান এবং বায়েজিদ থানার আহ্বায়ক ডা. রাসেল ও ইয়ার মোহাম্মদ-মিজান- গিয়াস উদ্দিন- ইয়াসিন আরাফাত-হাবিবুল্লাহ মিজান-ইমন এবং ইমরান হোসেন।

১৬-অক্টোবর চট্টগ্রাম জেএম সেন হলে পূজামণ্ডপে হামলার ঘটনায়- ৮৩ জনের নাম উল্লেখ করে কোতোয়ালি থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলায় অজ্ঞাতনামা আরও-৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। কোতোয়ালি থানার এসআই আকাশ মাহমুদ ফরিদ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে এই মামলাটি দায়ের করেন।

সবশেষ চট্টগ্রাম জেএমসেন হলের পূজামণ্ডপে হামলার চেষ্টা ও ব্যানার-পোস্টার ছেঁড়াসহ পুলিশের ওপর হামলার ঘটনার অভিযোগে-৮৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।