‘আল্লাহর গজব তোদের উপর পড়ুক’, ওবায়দুল কাদেরকে ভাই কাদের মির্জা

CNNWorld24
CNNWorld24 Dhaka
প্রকাশিত: 5:22 PM, January 10, 2021

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র প্রার্থী আবদুল কাদের মির্জা বলেছেন, যে ব্যক্তি আমাকে পাগল ও উন্মাদ বলেছে তিনি গোপালগঞ্জের সংসদ সদস্য। যেখানে ৯৯% মানুষ আওয়ামী লীগ করেন। তিনি নিজের যোগ্যতায় এমপি হননি। আওয়ামী লীগ করেছে, সে কারণে তিনি এমপি হয়েছেন।

তিনি আরও বলেন যে তিনি আগে মন্ত্রী ছিলেন কিন্তু এবার মন্ত্রী হতে পারেননি, কেন তাকে বাদ দেওয়া হয়েছিল? দায়িত্বশীল নেতাদের সংবাদ সম্পর্কে কথা বলা উচিত। ওবায়দুল কাদের সাহেবকে ভবিষ্যতে জয়ের জন্য আরও সতর্ক হতে হবে। নিজের বউয়ের দিকে নজর দিতে হবে। সাথে যারা কাজ করে তাদেরও নজরে রাখতে হবে, মাসোয়ারা কে কোথায় থেকে নিয়ে যায় সেদিকেও নজর রাখতে হবে।

রবিবার (১০ জানুয়ারি) বসুরহাট পৌরসভা নির্বাচনের আগে ৯ নং ওয়ার্ডের হাজিপাড়ায় একটি পথসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

আবদুল কাদের বলেন, ‘ ওবায়দুল কাদের সাহেব  আমার সাথে নেই, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ আমার সাথে নেই, নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগ আমার সাথে নেই, ডিসি, এসপি আমার সাথে নেই। তবে আমার সাথে জনগণ আছে। ওবায়দুল কাদের সাহেব বলেছেন, আমি অসুস্থ, আমি মরে যাব; এই কথাগুলি শুনে আমি দুর্বল হয়ে হয়ে যাই। কেন্দ্রীয় থেকে এখন অবধি যে এই কাজগুলো করছে তাদের উপর আল্লাহর গজব পড়ুক। আমি চারপাশে বারুদের গন্ধ পাই , আমি অস্ত্রের ঝনঝনানি শুনতে পাই, যে কোনও মুহুর্তে আমার জীবন বিপন্ন হতে পারে।আপনারা আমাকে কবর দিয়ে আসবেন।

সংবাদপত্রগুলি মূলগুলো লিখেন না, তারা আমার কথাগুলো এডিট করে এবং বিকৃত করে। তারা এগুলো প্রধানমন্ত্রী এবং আমাদের মন্ত্রীর কাছে পাঠিয়ে আমার বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ করে তুলছে। পনেরো জন আমার প্রশংসা করেছিলেন এবং একজন আনা মানুষ আমার প্রশংসা করেন আর এক আনা মানুষ আমার সমালোচনা করে। আমি অন্যায়ের প্রতিবাদের অংশ হিসাবে নির্বাচন নিয়েছি। ”

তিনি আরও বলেন, ‘ ওবায়দুল কাদের সাহেব  বলেছেন যে ঘরে ঘরে চাকরি দেবেন, এখন সেই চাকরিটা কোথায়? এই কথা বলতে গেলে আমি পাগল, উন্মাদ। শরম যদি লাগেগো … ঘোমটা দিয়ে চলো গো মির্জা একটি পংক্তি বলেন। কাদের সাহেব আমাকে এগিয়ে যেতে দেননি। আমি যখন অসুস্থ ছিলাম, তখন সে আমাকে ঢাকায় ভর্তি হতে দেয়নি। চট্টগ্রামে ভর্তি হতে বলে। আমি যদি ঢাকায় গেলে বড় নেতা হয়ে যাই। ‘

তিনি আরো করেন, “নোয়াখালী ডিসি, এসপি, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আজ ষড়যন্ত্র করছেন। আমাদের অনেক নেতাদের সর্বদা শক্তি ও ক্ষমতা থাকবে না। জননেত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আমার আবেদন, আপনার বাবা এই দেশকে স্বাধীন করেছেন, আপনি জনগণকে দিতে পারেন এই দেশের ভোটাধিকার।সম্রাট, জি কে শামীম এবং পাপিয়াদের পৃষ্ঠপোষকদের বিচার করতে হবে।তখন দেশে শান্তি আসবে, দেশটি স্বাভাবিক হবে এবং আমরা বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে সক্ষম হবো ‘

সরকারের নীতিনির্ধারকদের একটি সিদ্ধান্ত নিতে হবে যাতে এমপি থেকে ইউনিয়ন সদস্যের কোনও জনপ্রতিনিধি মাদকাসক্ত এবং মহিলা কেলেঙ্কারী হলে কেউই দলীয় মনোনয়ন পাবেন না এবং কেউই কেন্দ্রী পদ থেকে ওয়ার্ড পর্যায়ে কোনও পদে আসতে পারবেন না। এই ঘোষণার পাশাপাশি, সরকারী এবং বেসরকারী চাকরি দেওয়ার সময় ডোপ টেস্টও করতে হবে।