বর্ষসেরা ফুটবলারের লড়াইয়ে মেসি-রোনালদো-নেইমার

Desk Reporter
Desk Reporter
প্রকাশিত: ১১:০৯ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৩, ২০২১

স্পোর্টস ডেস্ক:
প্রতিবারের মতো এবারও বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কারের জন্য ফুটবলারদের তালিকা প্রকাশ করেছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড নেইমার জুনিয়র এবং পর্তুগিজ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো লিওনেল মেসির সাথে তালিকায় রয়েছেন, যিনি ২৬ বছর ধরে জাতীয় দলের দীর্ঘতম আন্তর্জাতিক শিরোপা জয়ের পর কোপা আমেরিকা জিতেছেন।

সোমবার (২২শে নভেম্বর), ফিফা ২০২১ ফিফা বর্ষসেরা পুরুষদের খেলোয়াড়ের জন্য ১১ জন ফুটবলারের একটি প্রাথমিক ওয়েবসাইট তালিকা প্রকাশ করেছে। বছরের সেরা হওয়ার দৌড়ে মেসি ও রোনালদো ইতালি ও চেলসির হয়ে ইউরো জয়ী জর্জিনো, রবার্ট লেভান্ডোস্কি, কিলিয়ান এমবাবেন এবং করিম বেনজেমার মতো তারকাদের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

গত মৌসুমে বার্সেলোনার ফর্মের খরায় দুর্দান্ত ছিলেন লিওনেল মেসি। তিনি ক্লাবের আর্থিক দুর্দশার মধ্যে কাতালানদের টেনে এনেছেন বলে মনে হচ্ছে। লা লিগায় গত মৌসুমে তাদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩০টি গোল করেছেন। দলটি কোপা দেল রে জিতেছে। রেকর্ড অষ্টমবারের মতো জিতেছেন পিচিচি ট্রফি।

ক্লাবের পারফরম্যান্স ম্লান হলেও গত মৌসুমে মেসির জাতীয় দলের পারফরম্যান্স ছিল দারুণ। দলের সম্মিলিত পারফরম্যান্স এবং মেসির ব্যক্তিগত প্রচেষ্টার সুবাদে ঘরের মাঠে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলকে হারিয়ে গত জুলাইয়ে কোপা আমেরিকা জিতেছিল আর্জেন্টিনা। আর ক্যারিয়ারে প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা জয়ের স্বাদ পেলেন মেসি। টুর্নামেন্টে চার গোলের পাশাপাশি পাঁচটিতে সহায়তা করে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করেছেন পিএসজি ফরোয়ার্ড। এমন দুর্দান্ত ফর্ম দেখিয়ে ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন তিনি।

অন্যদিকে, গত মৌসুমে জুভেন্টাসের খরা সত্ত্বেও মেসির মতোই তার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো ব্যক্তিগত ফর্মে ছিলেন উজ্জ্বল। তিনি ইতালিয়ান লিগ সিরি এ-তে সর্বোচ্চ ২৯টি গোল করেছেন। প্রিমিয়ার লিগ, লা লিগা এবং সেরি এ-তে প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে গোল করার রেকর্ড গড়েছেন গ্যারেন। পর্তুগিজ তারকা ইতালীয় কাপ এবং ইতালিয়ান সুপার কাপও জিতেছেন। ক্লাব. গত মৌসুমে জাতীয় দলের হয়ে কিছু রেকর্ডও গড়েছেন তিনি। ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে পর্তুগালের হয়ে সর্বোচ্চ পাঁচ গোল করে আন্তর্জাতিক ফুটবলে আগের রেকর্ড স্কোরার আলি দাইকে স্পর্শ করেন রোনালদো।

গতবার ফিফার সংক্ষিপ্ত তালিকায় জায়গা না পেলেও এবার ঠিকই আছেন ব্রাজিলিয়ান তারকা নেইমার জুনিয়র। পিএসজির হয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও লিগ ওয়ানে ব্যক্তিগত ফর্মে ছিলেন উজ্জ্বল। জাতীয় দলের কোনো অংশেই কম ছিলেন না তিনি। কোপা আমেরিকার ফাইনালে ব্রাজিল হেরে গেলেও সেরা টুর্নামেন্টের পুরস্কার পেয়েছেন। ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ডের সঙ্গে তার সতীর্থ কিলিয়ান এমবাপ্পেও রয়েছেন তালিকায়।

জর্জিনো এবারের দৌড়ে সবার থেকে এগিয়ে থাকবেন। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে আরেক জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটিকে হারিয়ে ইংলিশ ক্লাব চেলসির হয়ে শিরোপা জিতেছেন এই মিডফিল্ডার। জাতীয় দল ইউরোপ সেরা ট্রফি জিতেছে। ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে মাঝমাঠে তার অবদানকে খাটো করে দেখার নয়। ইতালীয় তারকার পাশাপাশি তার সতীর্থ অ্যাঙ্গোলো কন্তেও রয়েছেন তালিকায়। চেলসিকে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে সাহায্য করার ক্ষেত্রে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। মাঝমাঠ থেকেও ক্লাবের হয়ে পুরো মাঠ দখল করে রেখেছিলেন ফরাসি তারকা।

মেসি, রোনালদো, নেইমার এবং জর্জিওন ছাড়াও এই তালিকায় রয়েছেন লিভারপুলের হয়ে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা মোহাম্মদ সালাহ, বায়ার্নের হয়ে বুন্দেসলিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা রবার্ট লেভান্ডোস্কি, ম্যানসিটির চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করা মিডফিল্ডার কেভিন। চূড়ান্ত আরলিং হল্যান্ড, নরওয়ের গোল মেশিন, গোলের একটি সিরিজ করেছেন। রোনালদো